You are currently viewing Charida Village – Purulia

Charida Village – Purulia

চারিদা গ্রাম (Charida Village) হল ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া জেলায় অবস্থিত একটি ছোট এবং মনোরম গ্রাম। এই গ্রামটি তার সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্পের জন্য পরিচিত।

গ্রামটি সবুজ বন, পাহাড় এবং স্রোত দ্বারা বেষ্টিত যা এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে বাড়িয়ে তোলে। বাড়ি এবং মন্দিরের দেয়ালে শোভা পায় রঙিন ম্যুরাল এবং চিত্রকর্ম দ্বারা গ্রামের সৌন্দর্য আরও বৃদ্ধি পায়। এই ম্যুরালগুলি এই অঞ্চলের সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যকে চিত্রিত করে এবং প্রাকৃতিক রং ব্যবহার করে স্থানীয় শিল্পীরা তৈরি করেছেন।

চৌ নৃত্য হল পুরুলিয়ার আদিবাসীদের দ্বারা পরিবেশন করা একটি বিখ্যাত লোক নৃত্য। এটি মার্শাল নৃত্যের একটি ধারার অন্তর্ভুক্ত। একজন চৌ নর্তকী রঙিন মাস্ক পরেন এবং এই ‘চাউ মাস্কস’ চারিদা গ্রামের দক্ষ কারিগরদের দ্বারা নির্মিত ।

চড়িদা গ্রামের (Charida Village) ছৌ নাচের সমস্ত মুখোশ তৈরি হয় । পুরুলিয়ার ছৌ নাচ সারা পৃথিবীব্যাপী বিখ্যাত। লাল মাটির জমির এই অদ্ভুত গ্রামটি বাগমুন্দি থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দূরে অযোধ্যা পাহাড়ের মনোরম পাদদেশে অবস্থিত। 

Charida Village

পুরুলিয়া সাংস্কৃতিকভাবে পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে ধনী জেলা। এখানে অনুষ্ঠিত চৈত্র পোরোব নামে পরিচিত বসন্ত উৎসবটির মূল আকর্ষণ এখনও চৌ নাচ।  যদিও উৎসবটি  প্রায় 13 দিন স্থায়ী হয়। এখানকার উপজাতীয়  নর্তকীরা সারা বছর ধরে অনুশীলন করে ।  

চৌ নৃত্যশিল্পীরা বেশিরভাগ   স্থানীয় সম্প্রদায়ের পরিবার থেকে আসে। এই রূপের নাচের জন্য প্রচুর শারীরিক শক্তি এবং তত্পরতা প্রয়োজন। নৃত্যশিল্পীদের খুব অল্প বয়স থেকেই এই ফর্মটিতে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। 
বাংলার এই অঞ্চলে রীতি ও আচার অনুষ্ঠানের একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ ছৌ নিত্য। 

এই ধরণের নাচের রঙিন পোশাক এবং মুখোশের জন্য বিখ্যাত। পুরুলিয়া জেলার কয়েকটি গ্রাম এই নৃত্য ফর্মে সম্পূর্ণরূপে নিবেদিত এবং তারা এটি করে তাদের জীবিকা অর্জন করে। চারিদা হলেন কারিগরদের একটি গ্রাম যারা প্রজন্ম ধরে এই কাজ করে আসছে ।   প্রায় আড়াইশ জন কারিগর পরিবার মুখোশ তৈরির এই শিল্পের সাথে জড়িত। 

(Charida Village)

এই গ্রামটি (Charida Village) পুরুলিয়া এখন একটি বিখ্যাত পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে উঠেছে ।  আপনি নিশ্চয়ই পুরুলিয়ার বিখ্যাত ছৌ মুখোশ দেখেছেন বা এর কথা শুনেছেন ।

এই মুখোশ গুলি সাধারণত  ছৌ নিত্য শিল্পীরা ব্যবহার করেন ।  মুখোশ গুলি এতো সুন্দর যে লোকেরা প্রায়ই তাদের বাড়িতে একটা নিদর্শন হিসেবে কিনে নিয়ে যায় ।   এই মুখগুলি আসলে একটি শিল্পকর্ম ।  প্রায় 250 জন কারিগর এই শিল্পের সাথে জড়িত এবং এটি তাদের জীবিকা  ।

আপনি একবার এই গ্রামে আসার পর এই বর্ণময় মুখোশ গুলো কীভাবে তৈরি করছে তা আপনি দেখতে পারবেন ।  আপনি পুরুলিয়া ভ্রমণের স্মৃতিকথা হিসাবে স্মৃতি হিসাবে এই জাতীয় মুখ মুখোশ কিনে রাখতে পারেন ।

মূখোশ তৈরীর ঐতিহ্য প্রায় দেড়শ বছর আগে বাগমুন্ডি রাজা মানসিংহের আমলে শুরু হয়েছিল । এই মুখোশগুলো মহাকাব্য গুলি থেকে প্রাণী এবং চরিত্র গুলিকে চিত্রিত করা ।

  কাগজের শাজ্জা এবং কাদামাটি মুখোশ তৈরি করতে ব্যবহৃত  হয় । সাজ গুলি বেশিরভাগ প্লাস্টিকের পালক এবং পুতি দিয়ে তৈরি করা হয় ।  জরি চকচকে ব্যবহার করা হয় । মুখোশের চোখগুলি প্রশস্ত এবং পাটেরঅংশ দিয়ে তৈরি মুখের ঘন চুল ।

Leave a Reply